1. [email protected] : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক
  2. [email protected] : বাংলারকন্ঠ : বাংলারকন্ঠ
  3. [email protected] : বাংলারকন্ঠ.কম : বাংলারকন্ঠ.কম
বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন

এক নজরে ১০৫ কোম্পানির ইপিএস

  • আপডেট সময় : শনিবার, ১ মে, ২০২১
  • ২৯ বার দেখা হয়েছে
Eps

সপ্তাহজুড়ে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১০৫ কোম্পানি সমাপ্ত হিসাববছরের জানুয়ারি-মার্চ’২১ প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

লিনডে বাংলাদেশ: চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ’২১) অনীরিক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা ৭ শতাংশ কমে
কোম্পানিটির চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকের ৩ মাসে শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১৮.৮৮ টাকা। যার পরিমাণ আগের অর্থবছরের একই সময়ে হয়েছিল ২০.৩৬ টাকা। এ হিসাবে কোম্পানিটির মুনাফা ১.৪৮ টাকা বা ৭ শতাংশ কমেছে।

২০২১ সালের ৩১ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩৭৪.৬৩ টাকায়।

বেক্সিমকো: বেক্সিমকোর চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ২ টাকা ৩৮ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১২ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৩০ পয়সা
বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস: বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৩ টাকা ২৮ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২ টাকা ২ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৮ টাকা ২৩ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫ টাকা ৮৪ পয়সা।গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৭৭ টাকা ৮৮ পয়সা।

সামিট পাওয়ার: সামিট পাওয়ার এরচলতি হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৩৬ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ২৪ পয়স
অন্যদিকে চলতি হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে এককভাবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪ টাকা ১৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪ টাকা ৮ পয়সা।

ফরচুন সুজ: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৪১ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছিল ৪৩ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৬১ পয়সা।

রহিম টেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৪৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ৪ টাকা ১৫ পয়সা লোকসান হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৮৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৭৩ পয়সা।

মালেক স্পিনিং: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৯৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছিল ৪৩ পয়সা।
অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৯৮ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ২২ পয়সা।

অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার ১ টাকা ৮৩ পয়সা লোকসান হয়েছে। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ১ টাকা ৩৬ পয়সা লোকসান হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪ টাকা ১১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৪ টাকা ২৫ পয়সা।

কে অ্যান্ড কিউ: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৪৫ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২৫ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫৮ পয়সা।
রেকিট বেনকিজার:চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির নিট মুনাফা হয়েছে ১৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। গত বছর একই সময়ে নিট মুনাফা হয়েছিল ১১ কোটি ৩৬ লাখঝ টাকা। বছরের ব্যবধানে নিট মুনাফা বেড়েছে ২২ শতাংশ।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ২৯ টাকা ৩৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২৪ টাকা ৪ পয়সা।

তিতাস গ্যাস: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৬৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪৯ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ১২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ২ টাকা ১১ পয়সা।

পিপলস ইন্সুরেন্স:পিপলস ইন্সুরেন্সচলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৫৪ পয়সা। আগের হিসাববছরের একই সময়ে ছিল ৪৩ পয়সা।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ২৯ টাকা ১৪ পয়সা। আগের হিসাববছরের একই সময়ে ছিল ২৭ টাকা ৫৮ পয়সা।

সিমটেক্স:সিমটেক্সচলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ২৪ পয়সা। এছাড়া চলতি হিসাববছরের ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭৬ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময় যার পরিমাণ ছিল ১ টাকা ১৯ পয়সা।
এছাড়া শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) ১ টাকা ৫৪ পয়সা এবং শেয়ার প্রতি নেট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ২১ টাকা ৪২ পয়স
ইস্টার্ন ইন্সুরেন্স: ইস্টার্ন ইন্সুরেন্সচলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৬ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ৪৬ টাকা ৮৫ পয়সা।

রূপালীইন্সুরেন্স:রূপালী ইন্সুরেন্সপ্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট অ্যাসেট ভ্যালু (এনএভি) ২১ টাকা ৮৩ পয়সা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির ক্যাশ ফ্লো হয়েছে ২৩ পয়সা।

বারাকা পাওয়ার: বারাকা পাওয়ারতৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬৮ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ৫৪ পয়সা।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ১৮ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১ টাকা ৮০ পয়সা।

এনার্জিপ্যাক পাওয়ার: এনার্জিপ্যাক পাওয়ারচলতি হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে সহযোগড়ী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় ১ টাকা ৩৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৯৪ পয়সা।

অন্যদিকে চলতি হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে এককভাবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১ টা২৬ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৬৩ পয়সা।

নিউ লাইন ক্লোথিংস: নিউ লাইন ক্লোথিংস চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৪১ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২৩ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৩২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ২৮ পয়সা।

ইন্দো বাংলা ফার্মাসিটিউক্যালস: ইন্দোবাংলা ফার্মাসিটিউক্যালসতৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১২ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ৪২ পয়সা।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৭৯ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিলো ১ টাকা ২৪ পয়সা।

ডোরিন পাওয়ার: ডোরিন পাওয়ারচলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৭২ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৭৬ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৬ টাকা ২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৭৭ পয়সা।

বেক্সিমকো সিনথেটিকস: বেক্সিমকো সিনথেটিকসরচলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে লোকসান হয়েছিল ৬৫ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ১ টাকা ৬০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে শেয়ার প্রি লোকসান ছিল ২ টাকা ৫ পয়সা।

শাইনপুকুর সিরামিকস: শাইনপুকুর সিরামিকসচলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৪ সপয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৫ পয়সা লোকসান হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ পয়সা।

গ্লোবাল হেভি: গ্লোবাল হেভি কেমিক্যাল লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর’২০-ডিসেম্বর’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা হয়।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর’২০-ডিসেম্বর’২০) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২০ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ২৬ পয়সা আয় হয়েছিল। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে (জুলাই’২০-ডিসেম্বর’২০) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৬০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫১ পয়সা।

আরএসআরএম: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি আরএসআরএম লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর’২০-ডিসেম্বর’২০) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর’২০-ডিসেম্বর’২০) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় ১ টাকা ৮ পয়সা লোকসান হয়েছে।। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৫০ পয়সা আয় হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম দুই প্রান্তিক তথা ৬ মাসে (জুলাই’২০-ডিসেম্বর’২০) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ২ টাকা ১৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৫ পয়সা।

সিভিওপেট্রো কেমিক্যালস: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিভিও পেট্রো কেমিক্যালস লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি ৬৯ পয়সা লোকসান হয়েছে। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪ পয়সা। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) শেয়ার প্রতি ১ টাকা ৯৭ পয়সা লোকসান হয়েছে।গত বছরের একই সময়ে শেয়ার প্রি লোকসান হয়েছিল ৩৭ পয়সা।

মতিন স্পিনিং: মতিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৯২ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৮৮ পয়সা। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৩ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৬৯ পয়সা।

জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন:পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৩ পয়সা।

গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ১২ পয়সা লোকসান হয়েছিল। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) শেয়ার প্রতি ৩ পয়সা লোকসান হয়েছে। গত বছরের একই সময়ে ২৩ পয়সা আয় হয়েছিল।

শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ: শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি ২১ পয়সা লোকসান হয়েছে। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৮ পয়সা আয় হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি ৭৯ পয়সা লোকসান হয়েছে। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৪১ পয়সা আয় হয়েছিল।

অ্যাডভান্ট ফার্মা: অ্যাডভান্ট ফার্মা লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা হয়। চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ২৩ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২২ পয়সা। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ২৭ পয়সা।

যমুনা ব্যাংক: যমুনা ব্যাংক লিমিটেড চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রথম প্রান্তিকে সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ ব্যাংকটির সমন্বিত ‌শেয়ার প্রতি আয় (Consolidated EPS) হয়েছে ১ টাকা ৬০ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ৪২ পয়সা ছিল। অন্যদিকে প্রথম প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (Solo EPS) হয়েছে ১ টাকা ৫৯ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ৪৫ পয়সা ছিল। গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমন্বিতভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৪১ টাকা ৪২ পয়সা।

অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আলোচ্য প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বেড়েছে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৫৯ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ২ টাকা ৪৭ পয়সা। সে হিসাবে কোম্পানিটির আয় ১২ পয়সা বেড়েছে।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭ টাকা ৯৬ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৭ টাকা ৭৩ পয়সা। ৩১ মার্চ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৪৩ টাকা ৯৮ পয়সা।

মিউচুয়ালফান্ড গ্রামীণওয়ান: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মিউচুয়াল ফান্ড গ্রামীণ ওয়ান: স্কিম টু এর তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) ফান্ডের ট্রাস্টি কমিটির বৈঠকে ওই প্রতিবেদন অনুমোদনের পর তা প্রকাশ করা হয়েছে। ফান্ডটির ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা এইমস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। সর্বশেষ প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) ফান্ডের ইউনিট প্রতি লোকসান হয়েছে ১০ পয়সা। গত বছরের এই সময়ে ইউনিট প্রতি আয় হয়েছিল ৩১ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) ফান্ডটির ইউনিট প্রতি আয় দাঁড়িয়েছে ৩ টাকা ৯১ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৬৮ পয়সা ছিল। গত ৩১ মার্চ ২০২১ তারিখে ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির প্রতি ইউনিটের সম্পদ মূল্য ছিল ১১ টাকা ২৪ পয়সা। আর বাজার মূল্যে এর এনএভি ছিল ১৮ টাকা ৬৫ পয়সা।

ইস্টার্নলুব্রিকেন্টস: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা হয়। কোম্পানি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৩১ টাকা ৮৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৩ টাকা ৭১ পয়সা। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩৭ টাকা ৬৯ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৬ টাকা ৯ পয়সা।

বিডিকমঅনলাইন: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বিডিকম অনলাইন লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর তা হয়। কোম্পানি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩১ পয়সা। অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌ইপিএস হয়েছে ৭০ পয়সা। গত বছর একই সময়ে ৬৬ পয়সা ইপিএস হয়েছিল।

বসুন্ধরাপেপারমিলস: তৃতীয় প্রান্তিক (জানুয়ারি -মার্চ’২১) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে কাগজ ও প্রকাশনা খাতের বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেড। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১৫ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১.০১ টাকা। ৩১ মার্চ ২০২১ অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৪৪.৫৯ টাকা। তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩.৯৯ টাকা (নেগেটিভ)।

গত বছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১০.১২ টাকা। অর্থাৎ গেল বছর যেখানে কোম্পানিটির পজেটিভ ক্যাশ ফ্লো ছিল ১০ টাকার ওপরে। সেখানে এ বছর ক্যাশ ফ্লো প্রায় ৪ টাকা নেগেটিভ হয়ে গেছে।

মেঘনাকনডেন্সডমিল্ক: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লেকাসনা হয়েছে এক টাকা ২৯ পয়সা, যা গত বছর একই সময়ে এক টাকা ৪২ পয়সা ছিল। অন্যদিকে ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান ৫ টাকা ২৭ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৫ টাকা ৪২ পয়সা ছিল।

মেঘনাপিইটি:তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লেকাসনা হয়েছে ৬ পয়সা, যা গত বছর একই সময়ে ৮ পয়সা ছিল। অন্যদিকে ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান ২০ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ২২ পয়সা ছিল।

কাট্টলিটেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে২৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪৬ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৯০ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৪০ পয়সা।

এগ্রিকালচারালমার্কেটিং(প্রাণ): চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৯৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৬৮ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৯৬ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫ টাকা ৮৫ পয়সা।

রংপুরফাউন্ড্রি(আরএফএল): চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৮৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৬১ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ২ টাকা ৭৯ পয়সা।

ইনডেক্সঅ্যাগ্রো: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৪৫ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ২৯ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৮১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৯০ পয়সা।

৩১ মার্চ,২০২১ সমাপ্ত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৫৭ টাকা ৩৪ পয়সা।

বাংলাদেশল্যাম্পস: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ০৫ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির লোকসান হয়েছিল ৪ টাকা ১৯ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ২৬ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৮ টাকা ৪২ পয়সা।

৩১ মার্চ,২০২১ সমাপ্ত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৭৪ টাকা ৯৩ পয়সা।

স্ট্যান্ডার্ডব্যাংক: চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৭ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি ৩৬ পয়সা আয় ছিল।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৭ টাকা ৩৫ পয়সা।

মেঘনাসিমেন্ট: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ৩০ পয়সা।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৪০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল (ইপিএস) ৯২ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৬৮ টাকা ৭৫ পয়সা।

হাইডেলবার্গসিমেন্ট:প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮টাকা ২৩ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৭৭ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৭৬ টাকা ৩৪ পয়সা।

আমানফিড: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ৬১ পয়সা।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ১১ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল (ইপিএস) ২ টাকা ২১ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৩৬ টাকা ৯১ পয়সা।

মেঘনাকনডেন্সডমিল্ক: তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি -মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ২৯ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান (ইপিএস) ১ টাকা ৪২ পয়সা।

এদিকে গত ৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ৫ টাকা ২৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল (ইপিএস) ৫ টাকা ৪২ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ঋণাত্বক ৬৪ টাকা ৮২ পয়সা।

বেঙ্গলউইন্ডসোর: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ০.০৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির লোকসান হয়েছিল ০.০৫ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪৬ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৪১ পয়সা।

৩১ মার্চ,২০২১ সমাপ্ত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ২৪ টাকা ৭৩ পয়সা।

ন্যাশনালটিকোম্পানি: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৩৪ টাকা ৩২ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছিল হয়েছিল ৪১ টাকা ৮৩ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩১ টাকা ৯১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৩৫ টাকা ২১ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৮৪ টাকা ৩৪ পয়সা।

রেনাটালিমিটেড: সর্বশেষ প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ কোম্পানিটির সমন্বিত ‌শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১২ টাকা ৮২ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১১ টাকা ৪০ পয়সা ছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ৩৭ টাকা ৬২ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৩২ টাকা ৯৪ পয়সা ছিল।

ড্রাগনস্যুয়েটার: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩২ পয়সা। গত বছরও একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৩২ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৯২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৭১ পয়সা।

জেএমআইসিরিঞ্জ: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৭৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৪ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৬৫ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৩ টাকা ৬৩ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১২২ টাকা ৩২ পয়সা।

সিলভাফার্মাসিউটিক্যালস: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১৯ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ২০ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৭৩ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৭৫ পয়সা।

আনলিমাইয়ার্ন: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ৫ পয়সা। গত বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি ১৩ পয়সা লোকসান হয়েছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২২ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১১ পয়সা।

প্রভাতীইন্স্যুরেন্স: প্রথম প্রান্তিকে ( জানুয়ারি ‘২১ থেকে ৩১ মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ২৬ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৬৮ পয়সা ছিল।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২২ টাকা ৩৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১৯ টাকা ৬০ পয়সা।

প্যারামাউন্টইন্স্যুরেন্স: প্রথম প্রান্তিকে ( জানুয়ারি ‘২১ থেকে ৩১ মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ১ টাকা১ পয়সা, গত বছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ১৪ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২৭ টাকা ১৩ পয়সা। গত বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ২১ টাকা ১০ পয়সা।

অ্যাপেক্সট্যানারি: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৬ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১০ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪৭ হয়েছে টাকা পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৭৭ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য ছিল ৬২ টাকা ২২ পয়সা।

ইসলামীব্যাংক:প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৪৩ পয়সা।একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৩৯ টাকা ৩৩ পয়সা।

এসোসিয়েটেডঅক্সিজেন: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪৭ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫৯ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ২১ পয়সা।

গত ৩১, ২০২১ মার্চ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য ছিল ১৭ টাকা ৮৪ পয়সা।

আইসিবিইসলামীব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি লোকসান দাঁড়িয়েছে ০.১৫ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ০.০৯ টাকা।এদিকেব্যাংকটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফএফপিএস) দাঁড়িয়েছে ০.১৩ টাকা। গত অর্থবছরের ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ০.১৫ (নেগেটিভ)। এছাড়া ৩১ মার্চ ২০২১ অনুযায়ী শেয়ার প্রতি নেট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৭.৬৯ টাকা (নেগেটিভ)।

এপেক্সউইভিং: পুঁজিবাজারে ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটে তালিকাভুক্ত কোম্পানিএপেক্স উইভিং অ্যান্ড ফিনিশিং মিলস লিমিটেডের চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই’২০-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।কোম্পানিটির চলতি অর্থবছরের ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ৫৭ পয়সা। যা পরিমাণ আগের অর্থবছরের একই সময়ে লোকসান হয়েছিল ৯১ পয়সা।২০২১ সালের ৩১ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৬২.৫৮ টাকায়।

এমজেএলবাংলাদেশ: সর্বশেষ প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ কোম্পানিটির সমন্বিত ‌শেয়ার প্রতি আয় (Consolidated EPS) হয়েছে ২ টাকা ৯ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ৮১ পয়সা ছিল।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৭৩ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৪ টাকা ৯২ পয়সা ছিল।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমন্বিতভাবে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৩৭ টাকা ৮৮ পয়সা।

কেডিএসএক্সেসরিজ: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬০ পয়সা। গত বছরও একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৬০ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৭১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৭৭ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২৪ টাকা ২৫ পয়সা।

ভিএফএসথ্রেড: তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৪১ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ০.৩৮ টাকা। এছাড়া নয় মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.২৭ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১.৩৯ টাকা।

এদিকে তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ০.৮৯ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ১৮.৪৮ টাকা।

এডিএনটেলিকম: তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৫৬ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ০.৩৬ টাকা। এছাড়া নয় মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১.৭৬ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ১.২৪ টাকা।

এদিকে তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.২২ টাকা এবং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ২৫.৫৩ টাকা।

পাওয়ারগ্রিড: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৪১ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৯৯ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৯৩ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৪ টাকা ৩৪ পয়সা।

উসমানিয়াগ্লাসশিট: হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ৪ টাকা ৮৮ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৪ টাকা ৭৫ পয়সা।

এইচআরটেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯৩ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৪৩ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৮৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৩১পয়সা।

ন্যাশনালটিউবস: ন্যাশনাল টিউবসচলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি হিসাব বছরের ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ২৫ পয়সা। যার পরিমাণ আগের অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় ছিল ২৩ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ১৯ পয়সা। আগের অর্থবছরের একই সময়ে হয়েছিল ৩ পয়সা। ২০২১ সালের ৩১ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৫২ টাকা ৭৯ পয়সায়।

পদ্মাঅয়েল: পদ্মা অয়েল চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি হিসাব বছরের ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৬ টাকা ২৩ পয়সা। যার পরিমাণ আগের অর্থবছরের একই সময়ে আয় হয়েছিল ২০ টাকা ৬৩ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের তিন মাসে (জানুয়ারি-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৩ পয়সা। আগের অর্থবছরের একই সময়ে হয়েছিল ৭ টাকা ২৮ পয়সা। ২০২১ সালের ৩১ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৬১ টাকা ৩৬ পয়সায়।

শমরিতাহাসপাতাল: শমরিতা হাসপাতাল পরিচালনা পর্ষদ তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই,২০২০-মার্চ’২০২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।৯ মাসে (জুলাই,২০২০ -মার্চ’২০২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৫৮ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল (ইপিএস) ১ টাকা ১৯ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) হয়েছে ৫০ টাকা ৮১ পয়সা।

ব্যাংকএশিয়া: ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ ব্যাংক এশিয়ার সমন্বিত ‌শেয়ার প্রতি আয় (Consolidated EPS) হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ১৬ পয়সা ছিল।

অন্যদিকে এককভাবে ব্যাংক এশিয়ার শেয়ার প্রতি আয় (Solo EPS) হয়েছে ১ টাকা ৪ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ১৮ পয়সা ছিল।

একমিল্যাবরেটরিজ: একমি ল্যাবরেটরিজ গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।চলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৮৪ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ১ টাকা ৬৮ পয়সা।

অন্যদিকে হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক তথা ৯ মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৫৯ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানির ইপিএস ছিল ৫ টাকা ৩৪ পয়সা।

এশিয়াপ্যাসিফিকইন্স্যুরেন্স: এশিয়া প্যাসিফিক ইন্স্যুরেন্স গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে সমাপ্ত প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।আলোচিত বছরে কোম্পানিটির ‌শেয়ার প্রতি আয় (EPS) হয়েছে ১ টাকা ৭ পয়সা। গত বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছিল ৮২ পয়সা।

গত ৩১ মার্চ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য ছিল ২১ টাকা ৭০ পয়সা।

ইউনিলিভারকনজ্যুমারঃ ইউনিলিভার কনজ্যুমার কেয়ার লিমিটেড চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ১০ টাকা ২০ পয়সা। কন্টিনিউয়িং অপারেশন হিসেবে গত বছরের এই সময়ে ইপিএস ছিল ১৪ টাকা ৯৫ পয়সা। আর শুধু কোম্পানির হিসাবে গত বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ১৪ টাকা ৯৭ পয়সা।

৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৩৩ টাকা ২৮ পয়সা।

আইএফআইসিব্যাংক: আইএফআইসি ব্যাংক চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে সহযোগী প্রতিষ্ঠানের আয়সহ ব্যাংকটির সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (Consolidated EPS) হয়েছে ৪৬ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস ছিল ৩৭ পয়সা।

অন্যদিকে প্রথম প্রান্তিকে এককভাবে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি আয় (Solo EPS) হয়েছে ৪৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে একক ইপিএস ছিল ৩৭ পয়সা। ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে ব্যাংকটির সমন্বিত শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৭ টাকা ৫৭ পয়সা।

পেনিনসুলাচিটাগং: পেনিনসুলা চিটাগংচলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে তথা নয় মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪৬ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ৪১ পয়সা ছিল। তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) ছিল ৩৯ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৬৭ পয়সা ছিল।

৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৩০ টাকা ৩৩ পয়সা।

ই–জেনারেশন: ই-জেনারেশনতৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি,২১-মার্চ,২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৬ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৫৪ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই,২০-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ২৫ পয়সা।

আনোয়ারগ্যালভানাইজিং: আনোয়ার গ্যালভানাইজিংচলতি হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

হিসাববছরের তৃতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৪৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬৪ পয়সা।

তিন প্রান্তিক মিলিয়ে তথা নয় মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ১২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময়ে ১ টাকা ৫৯ পয়সা ছিল।

সিপার্লরিসোর্ট: রয়েল টিউলিপ সি পার্ল রিসোর্টতৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি,২১-মার্চ,২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৯ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই,২০-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ২০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৩৫ পয়সা।

ক্রিস্টালইন্স্যুরেন্স: ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্সচলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ’২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৩ পয়সা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে ইপিএস ছিল ৭৮ পয়সা।

জনতাইন্স্যুরেন্স: প্রথম প্রান্তিকে জনতা ইন্স্যুরেন্স ‌শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ৪৪ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ৪০ পয়সা ছিল।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ১৪ টাকা ৭৫ পয়সা।

সোনালী পেপার: চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই’২০-মার্চ’২১) কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৪.১৯ কোটি টাকা। যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৩.৪৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির নীট মুনাফা বেড়েছে ২১.১৫ শতাংশ।

এসময়ে সোনালী পেপারের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ২৯ পয়সা। যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ২ টাকা ৮ পয়সা। এদিকে কোম্পানিটির সবশেষ তিন মাসে (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২২ পয়সা। যা গত বছরের একই সময়ে ছিল৩২ পয়সা।

চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৮১ টাকা ৭৩ পয়সা। যা গত ৩০ জুন পর্যন্ত ছিল ৩০৭ টাকা ৮৮ পয়সা।

রানার অটোমোবাইল: তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ৫৫ পয়সা। আর এককভাবে ইপিএস হয়েছে ৭ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ পয়সা।

৯ মাসে (জুলাই,২০-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৫০ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ৭৪ পয়সা। আর এককভাবে ইপিএস হয়েছে ৮১ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ৪ পয়সা।

আইসিবি:৯ মাসে (জুলাই,২০-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ২৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৫৯ পয়সা। আর এককভাবে ইপিএস হয়েছে ৭৫ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান ছিল ৮২ পয়সা।

তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৮ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ২৭ পয়সা। আর এককভাবে ইপিএস হয়েছে ২৬ পয়সা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১ টাকা ২৪ পয়সা।

এসকে ট্রীমস: প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ,২১) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.১২ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ০.৬০ টাকা।

সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড: চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি’২১-মার্চ’২১) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রথম প্রান্তিকে সিঙ্গার বাংলাদেশ ‌১৮ কোটি টাকা নীট মুনাফা করেছে। গত বছর একই সময়ে মুনাফার পরিমাণ ছিল ১১ কোটি ৮৯ লাখ টাকা।

অন্যদিকে প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৮১ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ১ টাকা ১৯ পয়সা ছিল। গত বছরের তুলনায় প্রথম প্রান্তিকে সিঙ্গারের ইপিএস বেড়েছে ৬২ পয়সা বা প্রায় ৫২ শতাংশ।

গত ৩১ মার্চ, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ৩৩ টাকা ৮৪ পয়সা।

কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড:প্রথম প্রান্তিকের (১ জানুয়ারি’২১-৩১ মার্চ’২১) অনীরিক্ষীত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির কর পর পরিশোধের পর মোট মুনাফা হয়েছে এক কোটি ৯৭ লাখ ৬৯ হাজার ৬১৬ টাকা। আগের বছর একই সময় যার পরিমাণ ছিল এক কোটি ৭৮ লাখ ৯৫ হাজার ৪৫ টাকা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় মুনাফা বেড়েছে ১৮ লাখ ৭৫ হাজার ৫৭১ টাকা।

জানুয়ারি থেকে মার্চ ২০২১ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ৪৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪৫ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় বেড়েছে ৪ পয়সা।

জানুয়ারি থেকে মার্চ ২০২১ পর্যন্ত প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানির শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ২০ টাকা ৩২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ২০ টাকা ১০ পয়সা।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ