1. [email protected] : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক
  2. [email protected] : বাংলারকন্ঠ : বাংলারকন্ঠ
  3. [email protected] : বাংলারকন্ঠ.কম : বাংলারকন্ঠ.কম
শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৪:০২ অপরাহ্ন

এক নজরে ৩২ কোম্পানির ইপিএস

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৮ বার দেখা হয়েছে
Eps

দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩২ কোম্পানি চলতি হিসাববছরের অনিরীক্ষিত প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এমআই সিমেন্ট: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৫২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৮০ পয়সা (লোকসান)।

ফার কেমিক্যাল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৮ পয়সা।

ড্রাগন সোয়েটার: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৩৪ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৪১ পয়সা।

ফরচুন শুজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ২১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৬ পয়সা।

কুইন সাউথ টেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৯ পয়সা।

দুলামিয়া কটন: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ১৪ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় লোকসান ছিল ৪৭ পয়সা।

জেএমআই সিরিঞ্জ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা আট পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৩৬ পয়সা।

ডমিনেজ স্টিল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ২৯ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩৬ পয়সা।

ওয়াটা কেমিক্যাল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা তিন পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল তিন টাকা ৩১ পয়সা।

রানার অটো: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৮৮ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৮৬ পয়সা।

ইস্টার্ন লুব্রিক্যান্টস: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৯৪ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৪৬ পয়সা।

দেশবন্ধু গার্মেন্টস: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ছয় পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল তিন পয়সা।

লিগ্যাসি ফুটওয়্যার: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২০ পয়সা।

ন্যাশনাল টি কোম্পানি: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৩০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ২৭ পয়সা (লোকসান)।

জিকউ বলপেন ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল ২১ পয়সা (লোকসান)।

উসমানিয়া গ্লাসশিট ফ্যাক্টরি: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে তিন টাকা ৩৫ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা চার পয়সা (লোকসান)।

মুন্নু এগ্রো অ্যান্ড জেনারেল মেশিনারি: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৬১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৭৪ পয়সা।

জিবিবি পাওয়ার: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৪৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৭ পয়সা।

মুন্নু সিরামিক: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৩৭ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৪৩ পয়সা।

বাংলাদেশ সার্ভিসেস: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে তিন টাকা ৮৮ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ২৩ পয়সা।

সোনারগাঁও টেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৪৬ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৬ পয়সা।

জেনারেশন নেক্সট: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৫ পয়সা।

কাসেম ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ১৮ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৩ পয়সা।

সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৪০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩৫ পয়সা।

তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ১২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৩ পয়সা লোকসান।

সাফকো স্পিনিং: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ৩৪ পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩৭ পয়সা লোকসান।

কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৩৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৮ পয়সা।

সেন্ট্রাল ফার্মা: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে আট পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল চার পয়সা।

ওরিয়ন ইনফিউশনস: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ৩২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩০ পয়সা।

এসএস স্টিল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে এক টাকা ৪৪ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ১৫ পয়সা।

ইস্টার্ন কেবলস: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে দুই টাকা ছয় পয়সা (লোকসান), যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৫১ পয়সা (লোকসান)।

কাট্টলী টেক্সটাইল: চলতি হিসাববছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর, ২০২০) ইপিএস হয়েছে ২৭ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৪৯ পয়সা।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ