1. [email protected] : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক : বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক
  2. [email protected] : বাংলারকন্ঠ : বাংলারকন্ঠ
  3. [email protected] : বাংলারকন্ঠ.কম : বাংলারকন্ঠ.কম
মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন

তদন্ত স্থগিতের পরদিনই সূচক বেড়েছে পুঁজিবাজারে

  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৩৪ বার দেখা হয়েছে
DSE-CSE-600x360-1-600x337 (2)

শেয়ার দরে অস্বাভাবিক ওঠানামার কারণ খোঁজার নির্দেশনা স্থগিতের পরদিনই সূচক বেড়েছে বাংলাদেশের দুই পুঁজিবাজারে। শেয়ার দরে অস্বাভাবিক ওঠানামা তদন্তের নির্দেশ স্থগিত উল্লম্ফনের পরদিনই বড় দরপতন পুঁজিবাজারে শেয়ার দরে অস্বাভাবিক ওঠানামা তদন্তের নির্দেশ

সপ্তাহের শেষ দিন বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিন থেকে ১৩৯ দশমিক ৩০ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে ৫ হাজার ৯০৯ দশমিক ৩১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

এই সূচক প্রায় সাড়ে ২৩ মাসের মধ্যে বেশি। এর আগে এর চেয়ে বেশি সূচক ছিল ২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারি- ৫ হাজার ৯২৪ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট।

বৃহস্পাতিবার বেড়েছে অধিকাংশ শেয়ারের দাম।

এক মাসে শেয়ারের দর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানিগুলোর বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার তদন্তের ঘোষণার পর বুধবার বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বড় দরপতন হয়েছিল।

শান্তা অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হাসান বলেন, “বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে আস্থা ফিরে এসেছে। শেয়ারের দাম বাড়ার তদন্ত করার খবরে বিনিয়োগকারীরা ভয় পেয়ে গিয়েছিল। নির্দেশনা স্থগিত করায় আবার আগের অবস্থায় ফিরে এসেছে।”

পুঁজিবাজারে যেসব শেয়ারের দাম গত এক মাসের মধ্যে ৫০ শতাংশের বেশি ওঠানামা করেছে, তার পেছনের কারণ খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার রাতে দুই স্টক এক্সচেঞ্জকে নির্দেশ দেয় দেশের পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এই খবরের পরে বুধবার কমে গিয়েছিল সূচক ।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষক মোহাম্মদ মুসা বলেন, “অনেক বিনিয়োগকারী মুনাফায় ছিল। তারা মনে করেছিল শেয়ারের দাম আরও বাড়বে। তাদের কেউ কেউ আজ শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছে এবং মুনাফা তুলে নিয়েছে।
“এছাড়া শেয়ারের দাম বাড়া নিয়ে তদন্ত শুরুর খবরে কেউ কেউ ভয় পেয়ে শেয়ার ছেড়ে দিয়েছে। এর ফলে শেয়ারের দাম কমে গেলেও লেনদেন বেড়ে গেছে,” বলেন ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স বিভাগের এই অধ্যাপক।

ডিএসইতে বৃহস্পতিবার ২ হাজার ৭০ কোটি ৮৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়, যা আগের কর্মদিবসে ২ হাজার ১০৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ছিল।

ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৬২টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৯টির, কমেছে ১৩৩টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৭০টির দর।

ঢাকার অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ২১ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৩২৩ দশমিক ৫১ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ৭৬ দশমিক ৮৯ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ২৩৬ দশমিক ৭৮ পয়েন্টে।

অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক সিএএসপিআই ৩৭৯ দশমিক ৫১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৭ হাজার ২২০ পয়েন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় ২ দশমিক ৫২ শতাংশ বেশি।

সিএসইতে ৮৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিন ছিল ১৪১ কোটি ৬১ লাখ টাকা।

সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৮৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৭টির, কমেছে ১০৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির দর।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ