1. [email protected] : বাংলারকন্ঠ : বাংলারকন্ঠ
  2. [email protected] : বাংলারকন্ঠ.কম : বাংলারকন্ঠ.কম
  3. [email protected] : nayan : nayan
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন

আকর্ষণ বাড়াতে বাণিজ্য মেলায় মূল্য ছাড়ের ছড়াছড়ি

  • আপডেট সময় : শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৫ বার দেখা হয়েছে

জেলা প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ : বাণিজ্য মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের আকর্ষণ বাড়াতে বিভিন্ন প্যাভিলিয়ন আর স্টলগুলোতে চলছে পণ্যের ওপর মূল্য ছাড়ের ছড়াছড়ি। এদিকে, সাপ্তাহিক ছুটির দিন গতকাল শুক্রবার ও আজ শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) পরিবার ও বন্ধুদের নিয়ে মেলায় আসেন অনেকেই। প্রতিবারের মতোই কাপড় ও রান্নাঘরের কাজে ব্যবহৃত পণ্যের স্টলগুলোতে ভিড় করতে দেখা গেছে তাদের।

সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকেই মেলায় প্রবেশ করতে শুরু করেন রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশের এলাকার মানুষরা। তাদের বিভিন্ন স্টল ঘুরে বেড়াতে ও ছবি তুলতে দেখা গেছে। অনেককেই বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে যাচাই-বাছাই শেষে পণ্য কিনতে দেখা গেছে।

মেলার মূল অংশের ডান পাশে কয়েকটি পোশাক ব্র্যান্ডের স্টল রয়েছে। এসব স্টলে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ ছাড়ে পণ্য বিক্রি হচ্ছে। এর মধ্যে একটি ফ্যাশন হাউস প্রভিন্স। মেলার সামনের এই অংশে ক্রোকারিজ, বস্ত্রসামগ্রী ও খাবারের কিছু স্টল রয়েছে। এর মধ্যে গাজী গ্রুপের স্টলে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়ে রাইস কুকার ও গ্যাসের চুলাসহ নানা সমগ্রী বিক্রি হচ্ছে। আর এসকেবি কুকওয়ারের স্টলে চলছে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়।

মেলায় বস্ত্রখাতের স্টলগুলোতে ১০০ থেকে ৭০০ টাকা পর্যন্ত ছাড়ে বিভিন্ন পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। যেমন, ১ হাজার ৯৫০ টাকার বিছানার চাদর বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৭৫০ টাকায়। অর্থাৎ মূল্যছাড় ২০০ টাকা। এছাড়া, ৫০ শতাংশ ছাড়ে ব্লেজার বিক্রি করছে দেশি ব্র্যান্ড ব্লু স্কাই। অন্য ব্লেজার ও কটির দোকানগুলোতে চলছে বড় ছাড়ের ছড়াছড়ি। ইলেকট্রনিক্সের স্টলের মধ্যে ওয়ালটনের প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করতে দেখা গেছে আগত দর্শনার্থীদের।

এবারের বাণিজ্য মেলার লে-আউট প্ল্যান (সংশোধিত)অনুযায়ী বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্যাভিলিয়ন, রেস্টুরেন্ট ও স্টলের মোট সংখ্যা ৩৫১টি। এবারও মেলায় বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন নির্মাণ করা হয়েছে। এই প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, স্বাধিকার আন্দোলন ও স্বাধীনতা সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান, তার বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন ও আদর্শের বিভিন্ন দিক ছাড়াও যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে উন্নয়নের ধারায় এগিয়ে নেওয়ার প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।

মেলা কর্তৃপক্ষ জানায়, বাণিজ্য মেলায় দেশিয় পণ্যের পাশাপাশি ভারত, পাকিস্তান, তুরস্ক, ইরান, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশ অংশ নিয়েছে। মেলায় এসব দেশের বস্ত্র, মেশিনারিজ, কার্পেট, বিউটি সমগ্রী, ইলেক্ট্রনিক্সস, ফার্নিচার, পাট ও পাটজাত পণ্য, চামড়া-আর্টিফিসিয়াল চামড়ার জুতাসহ চামড়াজাত পণ্য, স্পোর্টস গুডস, স্যানিটারিওয়্যার, খেলনা, স্টেশনারি, ক্রোকারিজ, প্লাস্টিক, মেলামাইন, পলিমার, হারবাল ও ইমিটেশন জুয়েলারি, প্রক্রিয়াজাত খাদ্য, ফাস্টফুড, হস্তশিল্প, হোমডেকর পণ্য প্রদর্শিত যাচ্ছে। পণ্যপ্রদর্শনের পাশাপাশি দেশি পণ্য রপ্তানির বড় বাজার খোঁজার লক্ষ্য রয়েছে। মেলা ও আগত দর্শনার্থীদের নিরাপত্তায় পুলিশ, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন ও র‌্যাব কাজ করছে। সিসিটিভি স্থাপন করা হয়েছে।

রাজধানীর উপকণ্ঠে পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী প্রদর্শনী কেন্দ্রে গত ২১ জানুয়ারি শুরু হয় ২৮তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলছে।

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ